BGMEA DAILY DIGEST
News published in media related to RMG: Today’s RMG News

uploads/trade_daily/digest_photo_BDNews_FM__1631687061.jpg
The Financial Express
BGMEA has sought support of the government for the RMG industry to overcome the impacts of the Covid-19 pandemic and turn around. A delegation of BGMEA led by its acting President SM Mannan (Kochi) made the call during a meeting with Senior Secretary to the Finance Ministry Abdur Rouf Talukder at the Secretariat on Tuesday, reports UNB. Former BGMEA President Md. Shafiul Islam (Mohiuddin), MP, BGMEA Vice President Shahidullah Azim, Vice President (Finance) Khandoker Rafiqul Islam and Director M. Ahsanul Hoq were also present at the meeting.
uploads/trade_daily/digest_photo_P_Alo_Gas__1631687061.jpg

প্রথম আলো
পোশাক ও বস্ত্র খাত: গ্যাসের চাপ কম, উৎপাদন ব্যাহত জানতে চাইলে তৈরি পোশাকশিল্পের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সহসভাপতি শহিদউল্লাহ আজিম বলেন, ‘গ্যাসের অভাবে অনেক ডাইং কারখানায় উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। তাতে পোশাক কারখানার সুইং (পোশাক সেলাই) বন্ধ হওয়ার উপক্রম। দ্রুত পরিস্থিতির উন্নতি না হলে ক্রয়াদেশ বাতিল হবে অথবা আকাশপথে পণ্য পাঠাতে হবে। তিনি আরও বলেন, কারখানাগুলোতে এখন প্রচুর ক্রয়াদেশ রয়েছে। করোনার মধ্যে এখনই আসলে ঘুরে দাঁড়ানোর সময়। ৪০০-৫০০ কোটি ডলার বাড়তি রপ্তানি করা সম্ভব। কিন্তু গ্যাস–সংকটের মতো নিত্যনতুন সমস্যা আমাদের পিছিয়ে দিচ্ছে। সরকারের উচ্চ মহল থেকে ব্যবসার প্রতিবন্ধকতাগুলো দূর করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।’

uploads/trade_daily/digest_photo_D_Sun_UK__1631687061.jpg

The Daily Sun
UK to continue quota-free access for Bangladesh till 2029 United Kingdom will continue to provide Bangladeshi exports with duty-free and quota free access to the UK market until 2029. Congratulating Bangladesh on being recommended by the UN to graduate from its Least Developed Country category in 2026, the UK reiterated its commitment to support Bangladesh achieve a smooth and successful graduation. The communiqué issued on Monday following Bangladesh and the UK held their fourth Strategic Dialogue on Sept 9 in London.

uploads/trade_daily/digest_photo_Bonikbarta_19__1631687061.jpg

বণিক বার্তা
১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ভারতের সঙ্গে সব স্থলবন্দর খুলছে ভারতের সঙ্গে প্রায় সব স্থলবন্দর খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে মোট ১০টি স্থলবন্দর সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কার্যক্রম শুরু করবে। পর্যটক ছাড়া অন্য সবাই এ বন্দরগুলো দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। বাংলাদেশে প্রবেশের জন্য কোনো ধরনের নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট (এনওসি) প্রয়োজন হবে না। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে সামস এ বিষয়ে বলেন, দুই দেশের করোনা মহামারী পরিস্থিতি উন্নতির কারণে আমরা স্থলবন্দরগুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

uploads/trade_daily/digest_photo_B_Post_BGMEA_Seeks__1631687061.png

The Business Post
BGMEA seeks embassy’s support to expand apparel exports to US BGMEA has sought support and cooperation of Bangladesh Embassy to the United States in promoting bilateral trade between Bangladesh and the USA, including increasing apparel exports to the US market. BGMEA President Faruque Hassan made the call during a meeting with Bangladesh Ambassador to the US M Shahidul Islam in Washington DC on September 10. BGMEA Vice President Miran Ali was also present in the meeting. 

uploads/trade_daily/digest_photo_TBS_abdullah-hil-rakib__1631687061.jpg

The Business Standard
Innovation necessary for sustainable growth of Bangladesh's RMG industry: Abdullah Hil Rakib, Managing Director of Team Group and a Director of BGMEA By innovating and adding value, the factories need to diversify their product offerings, shifting to man-made fiber products as well as newer products such as jackets, outwear, lingerie, suits etc, which are still uncommon on our production floors. Vietnam overtaking Bangladesh as the world's second largest apparel exporting country has shocked and surprised many of us. One of the main reasons Vietnam, despite having half the number of apparel factories and workers as us, has seen growth in apparel exports even during the pandemic, is innovation.

uploads/trade_daily/digest_photo_N_Nation_Audit__1631687061.jpg

The New Nation
Audit renewal must to avail bonded warehouse facility NBR has decided not to extend tenure of the bonded warehouse facility without renewal of audit report of the company to bring more transparency in it. Mohiuddin Rubel, Director of BGMEA told The New Nation, "NBR has issued the circular newly for maintaining bonded warehouses rules strongly." "It will also bring transparency in using the duty-free benefit," he added. NBR provides the bonded warehousing benefits to a wide range of industries to encourage export-oriented industrialization and facilitate exports.

uploads/trade_daily/digest_photo_TBS_Bangla_Short__1631687061.jpg

The Business Standard (Bangla)
বাণিজ্যে শর্টকাট পথ ধরে চড়া মূল্য দিচ্ছেন পোশাক রপ্তানিকারকরা বিশ্ব বাণিজ্যের লেনদেনে সেলস কন্ট্রাক্টকে স্বীকৃতি দেয় না ব্যাংকিং ব্যবস্থা, ফলে কোন আমদানিকারক মূল্য পরিশোধ না করলে, সে টাকা আদায়ে ব্যাংকও ব্যবস্থা নিতে পারে না। বিজিএমইএ'র সাবেক পরিচালক ও টিএডি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশিকুর রহমান তুহিন বলেন, 'শুরুতে সেলস কন্ট্রাক্ট হওয়ার পর পণ্য পাঠানোর আগে পেমেন্ট নিশ্চিত করা হয়, যা সবচেয়ে নিরাপদ। আরেক ব্যবস্থা হলো পণ্য আমদানিকারকের বন্দরে পৌঁছানোর পর সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে অর্থ পরিশোধ করার পর বিল অব লেডিং (বিএল) সাবমিট করা হয়। এক্ষেত্রে ঝুঁকি হলো, আমদানিকারক কোন কারণে টাকা না দিলে, বিএল সাবমিট না হলে ওই পণ্য নিয়ে জটিলতায় পড়েন রপ্তানিকারক। আর তৃতীয় ব্যবস্থা হলো আমদানিকারক টাকা না দিলেও, রপ্তানিকারক পন্য খালাসের অনুমতি দেন, যা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু, বিশ্বস্ত আমদানিকারকের ক্ষেত্রে কোন কোন রপ্তানিকারক এ ঝুঁকি নেন।'

uploads/trade_daily/digest_photo_A_Resources__1631687061.jpg

Apparel Resources
Expat angle adds a new dimension to employment in Bangladesh Foreign nationals working in various sectors in Bangladesh, including in the readymade garment industry, has long been a much-debated issue. Even if there is reportedly no specific data on the number of foreign workers in Bangladesh, people in know of things maintain, the number will be in several lakhs. Managing Director of Sparrow Group (one of the largest readymade garment exporters in the country) Shovon Islam reportedly maintained that workers here are still lagging behind in tasks such as merchandising, marketing, price negotiation, different technical works and product design and, that is why foreigners have to be recruited even if local people are gradually becoming more efficient.